Text size A A A
Color C C C C
পাতা

সিটিজেন চার্টার

·        সমবায় একটি নিবন্ধনকৃত এবং গণতান্ত্রিক শৃঙখলায় পরিচালিত অর্থনৈতিক সংগঠন যার সামাজিক সম্পৃক্তি রয়েছে।

·        নিবন্ধন বা অনুমোদন ব্যতিত কোন সংগঠন কিংবা সমিতি বা সংঘের নামে ‘সমবায়’ বা কো-অপারেটিব শব্দ ব্যবহার করা যায় না এবং কেউ যদি এই আইন লংঘন করেন তবে দায়ী ব্যক্তি অর্থদন্ড বা কারাদন্ড অথবা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবেন।

·        একটি প্রাথমিক সমিতির ÿÿত্রে ন্যুনতম ২০(বিশ) জন ব্যক্তি সদস্যের প্রয়োজন।

·        কেন্দ্রীয় সমিতির বেলায় ১০টি প্রাথমিক সমিতি এবং জাতীয় সমিতির বেলায় ১০টি কেন্দ্রীয় সমবায় সমিতির প্রয়োজন হবে।

·        সমবায় সমিতি নিবন্ধনের উদ্দেশ্যে নির্ধারিত ফরমে, নির্ধারিত পদ্ধতিতে, নির্ধারিত ফি এবং প্রসত্মাবিত সমিতির উপ-আইনের ৩ কপি ও নির্ধারিত অন্যান্য কাগজপত্রসহ সংশিস্নষ্ট নিবন্ধকের নিকট আবেদনপত্র দাখিল করতে হবে।

·        পেশকৃত আবেদন মঞ্জুর হলে নিবন্ধক আবেদনকারীর বরাবরে নির্ধারিত ফরমে একটি নিবন্ধন সনদ ইস্যু করবেন এবং উক্ত সনদ নিবন্ধনের প্রামাণ্য দলিল হিসাবে গণ্য হবে।

·        প্রত্যেক সমবায় সমিতি একটি সংবিধিবদ্ধ সংস্থা যার স্থায়ী ধারাবাহিকতা আছে।

·        সমবায় আইন, বিধি ও উপ-বিধি পালন শর্তে সমবায় সমিতির চূড়ামত্ম কর্তৃত্ব তার সাধারণ সভার উপর বর্তাবে।

·        সমবায় আইন অনুযায়ী প্রত্যেক সমিতিতে ০৭টি রেজিস্টার সংরÿণ করতে হবে।

·        সাধারন সভার অনুমোদন ব্যতিত কোন সমবায় সমিতির স্থাবর বা অস্থাবর সম্পত্তি বিক্রয়, বিনিময় করা যাবে না এর ব্যতয় শাসিত্মযোগ্য অপরাধ।

 

·        সমিতির হিসাব ও কার্যক্রম নিবন্ধক কর্তৃক মনোনীত কর্মকর্তা/কর্মচারী দ্বারা বাৎসরিক অডিট কার্যাদি সম্পাদন করাতে হবে।

 

·        কোন সমিতি নিবন্ধন যোগ্যতা তখনই অর্জন করবে যখন সমিতি সদস্য সংখ্যা ২০(বিশ) এবং আদায়কৃত শেয়ার বিশ হাজার টাকা ও সমপরিমান সঞ্চয় জমা থাকে।